বুধবার, ১৯শে ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং, ৫ই পৌষ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, বিকাল ৩:২০
শিরোনাম
Wednesday, May 24, 2017 7:39 am
A- A A+ Print

যথাসময়ে উৎপাদন শুরু না হওয়া প্রকল্প বাতিলের সুপারিশ

দেশজুড়ে চলমান বিদ্যুৎ সংকটের মধ্যে নির্ধারিত সময়ে উৎপাদনে যেতে না পারা বিদ্যুৎ বিভাগের প্রকল্পগুলো বাতিলের সুপারিশ করেছে সংসদীয় কমিটি।

মঙ্গলবার বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয় বলে কমিটির সভাপতি তাজুল ইসলাম জানিয়েছেন।

ক্ষমতাসীন দলের এই সাংসদ বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “যেসব প্রকল্প নির্ধারিত সময়ে উৎপাদন শুরু করতে পারেনি তাদের প্রকল্প বাতিল করার সুপারিশ করা হয়েছে।”

এমন প্রকল্পের সংখ্যা জানতে চাইলে তিনি বলেন, “৫-৭ টা হবে।”

দেশজুড়ে কয়েকদিন ধরেই তাপদহ চলছে।সোমবার ঢাকায় ৩৬ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়, সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল যশোরে ৩৭ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। প্রচণ্ড গরমে হাঁসফাঁস অবস্থার মধ্যে বিদ্যুতের লোডশেডিং অসহনীয় করে তুলেছে জনজীবন।

এই সপ্তাহে গরম কমার কোনো আভাস না পাওয়ার মধ্যে বিদ্যুৎকর্তারাও জানিয়েছেন, রক্ষণাবেক্ষণসহ বিভিন্ন কারণে বন্ধ অন্তত ১০টি বিদ্যুৎকেন্দ্র, পরিস্থিতির উন্নতিতে আরও তিন-চার দিন লাগবে।

রোববার দেশে (২১ মে) বিদ্যুতের চাহিদা ছিল ৯ হাজার মেগাওয়াটের কিছু বেশি। বিপরীতে দিনের বেলা সর্বোচ্চ উৎপাদন ছিল ৭ হাজার ২২০ মেগাওয়াট এবং সন্ধ্যায় ৮ হাজার ৪৮৩ মেগাওয়াট।

বিদ্যুৎ বিভাগের তথ্য অনুযায়ী, রক্ষণাবেক্ষণের জন্য ৩৪০ মেগাওয়াট উৎপাদন ক্ষমতার বিবিয়ানা, ৪৫০ মেগাওয়াট উৎপাদন ক্ষমতার মেঘনাঘাট, আশুগঞ্জ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের কয়েকটি ইউনিট, ২২৫ মেগাওয়াট ক্ষমতার সিরাজগঞ্জ বিদ্যুৎকেন্দ্র বন্ধ রয়েছে।

এদিকে সংসদীয় কমিটি চলমান বিদ্যুৎ সংকট আগামী দুই-তিন দিনের মধ্যে সমাধান করার সুপারিশ করেছে।

এ সাময়িক সমস্যা নিরসনে জনপ্রতিনিধি এবং সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী সম্মিলিতভাবে সঠিকভাবে দায়িত্ব পালনেরও সুপারিশ করা হয়।

সংসদীয় কমিটির সভাপতি বলেন, “আমরা পুরো পরিস্থিতি নিয়ে বিদ্যুৎ বিভাগের বক্তব্য শুনেছি। তারা যেসব সমস্যার কথা বলেছে সেগুলো দ্রুত সমাধানের জন্য আমাদের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে।”

সংসদ সচিবালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বৈঠকে বিদ্যুৎ সমস্যার স্থায়ী সমাধানের লক্ষ্যে আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠক আহ্বান, সোলার প্ল্যান্ট স্থাপনের বিষয়ে জোর দিয়ে নতুন প্রকল্প নেওয়ার ও রোজার মাসে নিরবিছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ রাখার সুপারিশ করা হয়।

কমিটি পাওয়ার প্ল্যান্ট প্রকল্প কাজ সুনির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে বাস্তবায়নের সুপারিশের পাশাপাশি গ্যাসের উপর সকল ধরণের ট্যাক্স/ভ্যাটমুক্ত করার সুপারিশ করে বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

২০১৮ সালের মধ্যে দেশের সর্বত্র বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ‘সাব-কন্ট্রাক্ট’ না দিয়ে ঠিকাদারদের নিজস্ব লোক দিয়ে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে পল্লী বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়ার সুপারিশ করে।

সেসঙ্গে কোনোক্রমেই বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়ার কার্যাদেশ বর্ধিত না করার সুপারিশ করা হয়।

তাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে বৈঠকে কমিটির সদস্য বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ, মো. আতিউর রহমান আতিক, মো. আবু জাহির, এম. আবদুল লতিফ ও নাসিমা ফেরদৌসী অংশ নেন।

Comments

Comments!

 Natunsokal.com

যথাসময়ে উৎপাদন শুরু না হওয়া প্রকল্প বাতিলের সুপারিশ

Wednesday, May 24, 2017 7:39 am

দেশজুড়ে চলমান বিদ্যুৎ সংকটের মধ্যে নির্ধারিত সময়ে উৎপাদনে যেতে না পারা বিদ্যুৎ বিভাগের প্রকল্পগুলো বাতিলের সুপারিশ করেছে সংসদীয় কমিটি।

মঙ্গলবার বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয় বলে কমিটির সভাপতি তাজুল ইসলাম জানিয়েছেন।

ক্ষমতাসীন দলের এই সাংসদ বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “যেসব প্রকল্প নির্ধারিত সময়ে উৎপাদন শুরু করতে পারেনি তাদের প্রকল্প বাতিল করার সুপারিশ করা হয়েছে।”

এমন প্রকল্পের সংখ্যা জানতে চাইলে তিনি বলেন, “৫-৭ টা হবে।”

দেশজুড়ে কয়েকদিন ধরেই তাপদহ চলছে।সোমবার ঢাকায় ৩৬ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়, সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল যশোরে ৩৭ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। প্রচণ্ড গরমে হাঁসফাঁস অবস্থার মধ্যে বিদ্যুতের লোডশেডিং অসহনীয় করে তুলেছে জনজীবন।

এই সপ্তাহে গরম কমার কোনো আভাস না পাওয়ার মধ্যে বিদ্যুৎকর্তারাও জানিয়েছেন, রক্ষণাবেক্ষণসহ বিভিন্ন কারণে বন্ধ অন্তত ১০টি বিদ্যুৎকেন্দ্র, পরিস্থিতির উন্নতিতে আরও তিন-চার দিন লাগবে।

রোববার দেশে (২১ মে) বিদ্যুতের চাহিদা ছিল ৯ হাজার মেগাওয়াটের কিছু বেশি। বিপরীতে দিনের বেলা সর্বোচ্চ উৎপাদন ছিল ৭ হাজার ২২০ মেগাওয়াট এবং সন্ধ্যায় ৮ হাজার ৪৮৩ মেগাওয়াট।

বিদ্যুৎ বিভাগের তথ্য অনুযায়ী, রক্ষণাবেক্ষণের জন্য ৩৪০ মেগাওয়াট উৎপাদন ক্ষমতার বিবিয়ানা, ৪৫০ মেগাওয়াট উৎপাদন ক্ষমতার মেঘনাঘাট, আশুগঞ্জ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের কয়েকটি ইউনিট, ২২৫ মেগাওয়াট ক্ষমতার সিরাজগঞ্জ বিদ্যুৎকেন্দ্র বন্ধ রয়েছে।

এদিকে সংসদীয় কমিটি চলমান বিদ্যুৎ সংকট আগামী দুই-তিন দিনের মধ্যে সমাধান করার সুপারিশ করেছে।

এ সাময়িক সমস্যা নিরসনে জনপ্রতিনিধি এবং সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী সম্মিলিতভাবে সঠিকভাবে দায়িত্ব পালনেরও সুপারিশ করা হয়।

সংসদীয় কমিটির সভাপতি বলেন, “আমরা পুরো পরিস্থিতি নিয়ে বিদ্যুৎ বিভাগের বক্তব্য শুনেছি। তারা যেসব সমস্যার কথা বলেছে সেগুলো দ্রুত সমাধানের জন্য আমাদের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে।”

সংসদ সচিবালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বৈঠকে বিদ্যুৎ সমস্যার স্থায়ী সমাধানের লক্ষ্যে আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠক আহ্বান, সোলার প্ল্যান্ট স্থাপনের বিষয়ে জোর দিয়ে নতুন প্রকল্প নেওয়ার ও রোজার মাসে নিরবিছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ রাখার সুপারিশ করা হয়।

কমিটি পাওয়ার প্ল্যান্ট প্রকল্প কাজ সুনির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে বাস্তবায়নের সুপারিশের পাশাপাশি গ্যাসের উপর সকল ধরণের ট্যাক্স/ভ্যাটমুক্ত করার সুপারিশ করে বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

২০১৮ সালের মধ্যে দেশের সর্বত্র বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ‘সাব-কন্ট্রাক্ট’ না দিয়ে ঠিকাদারদের নিজস্ব লোক দিয়ে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে পল্লী বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়ার সুপারিশ করে।

সেসঙ্গে কোনোক্রমেই বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়ার কার্যাদেশ বর্ধিত না করার সুপারিশ করা হয়।

তাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে বৈঠকে কমিটির সদস্য বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ, মো. আতিউর রহমান আতিক, মো. আবু জাহির, এম. আবদুল লতিফ ও নাসিমা ফেরদৌসী অংশ নেন।

Comments

comments

X