বৃহস্পতিবার, ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং, ৫ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, রাত ২:৩৪
শিরোনাম
Saturday, August 5, 2017 12:42 am
A- A A+ Print

তুফান, মার্জিয়া আরও দুদিনের রিমান্ডে

বগুড়ায় ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনার প্রধান আসামি তুফান সরকার ও তাঁর স্ত্রীর বড় বোন নারী কাউন্সিলর মার্জিয়া আকতারের আরও দুদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। এ নিয়ে এ মামলায় তৃতীয় দফায় তাঁদের রিমান্ড মঞ্জুর করা হলো।822a88a73b34190865268cdfd6df49f9-59846b4518ba0

আজ শুক্রবার বগুড়ার জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আহসান হাবিবের আদালত এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন। মামলার প্রধান আসামি তুফান সরকার, তাঁর স্ত্রীর বড় বোন ও নারী কাউন্সিলর মার্জিয়া আকতার এবং সহযোগী মুন্নার দ্বিতীয় দফা রিমান্ড শেষে আজ আদালতে হাজির করা হয়েছিল। তবে পুলিশ এই দুজনের পাঁচ দিন করে পুনরায় রিমান্ডের আবেদন করে। এ ছাড়া তুফানের সহযোগী মুন্না ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।

মামলায় দেওয়া তথ্যমতে, ১৭ জুলাই বাড়ি থেকে ক্যাডার দিয়ে তুলে নিয়ে গিয়ে এক ছাত্রীকে বগুড়া শহর শ্রমিক লীগের আহ্বায়ক তুফান সরকার ধর্ষণ করেন। ঘটনা ধামাচাপা দিতে দলীয় ক্যাডার এবং এক নারী কাউন্সিলরকে নির্যাতিত মেয়েটির পেছনে লেলিয়ে দেন তিনি। ২৮ জুলাই বিকেলে তাঁরা ওই ছাত্রী ও তার মাকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে চার ঘণ্টা ধরে নির্যাতন চালান। এরপর দুজনেরই মাথা ন্যাড়া করে দেওয়া হয়।

এ ঘটনায় এই ছাত্রীর মা বাদী হয়ে ২৮ জুলাই রাতে তুফান সরকার, তাঁর স্ত্রী আশা সরকার, আশা সরকারের বড় বোন মার্জিয়া আকতারসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও নির্যাতনের অভিযোগে দুটি মামলা করেন। এর মধ্যে এজাহারভুক্ত ৯ জনসহ মোট ১১ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

Comments

Comments!

 Natunsokal.com

তুফান, মার্জিয়া আরও দুদিনের রিমান্ডে

Saturday, August 5, 2017 12:42 am

বগুড়ায় ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনার প্রধান আসামি তুফান সরকার ও তাঁর স্ত্রীর বড় বোন নারী কাউন্সিলর মার্জিয়া আকতারের আরও দুদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। এ নিয়ে এ মামলায় তৃতীয় দফায় তাঁদের রিমান্ড মঞ্জুর করা হলো।822a88a73b34190865268cdfd6df49f9-59846b4518ba0

আজ শুক্রবার বগুড়ার জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আহসান হাবিবের আদালত এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন। মামলার প্রধান আসামি তুফান সরকার, তাঁর স্ত্রীর বড় বোন ও নারী কাউন্সিলর মার্জিয়া আকতার এবং সহযোগী মুন্নার দ্বিতীয় দফা রিমান্ড শেষে আজ আদালতে হাজির করা হয়েছিল। তবে পুলিশ এই দুজনের পাঁচ দিন করে পুনরায় রিমান্ডের আবেদন করে। এ ছাড়া তুফানের সহযোগী মুন্না ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।

মামলায় দেওয়া তথ্যমতে, ১৭ জুলাই বাড়ি থেকে ক্যাডার দিয়ে তুলে নিয়ে গিয়ে এক ছাত্রীকে বগুড়া শহর শ্রমিক লীগের আহ্বায়ক তুফান সরকার ধর্ষণ করেন। ঘটনা ধামাচাপা দিতে দলীয় ক্যাডার এবং এক নারী কাউন্সিলরকে নির্যাতিত মেয়েটির পেছনে লেলিয়ে দেন তিনি। ২৮ জুলাই বিকেলে তাঁরা ওই ছাত্রী ও তার মাকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে চার ঘণ্টা ধরে নির্যাতন চালান। এরপর দুজনেরই মাথা ন্যাড়া করে দেওয়া হয়।

এ ঘটনায় এই ছাত্রীর মা বাদী হয়ে ২৮ জুলাই রাতে তুফান সরকার, তাঁর স্ত্রী আশা সরকার, আশা সরকারের বড় বোন মার্জিয়া আকতারসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও নির্যাতনের অভিযোগে দুটি মামলা করেন। এর মধ্যে এজাহারভুক্ত ৯ জনসহ মোট ১১ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

Comments

comments

X